মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব অ্যারিজোনার অধ্যাপক উইলিয়াং ডিএস কিলোগর জানাচ্ছেন, যখন আমরা ক্লান্ত থাকি বা ঘুম পায় তখন খুশি বা দুঃখের অভিব্যক্তির মধ্যে পার্থক্য করতে পারি না। রাগ, ভয়, অবাক বা বিরক্তির অভিব্যক্তি বুঝতে পারলেও খুশি বা দুঃখের অভিব্যক্তি বুঝে উঠতে পারি না। কারণ, মস্তিষ্ক ক্লান্ত থাকলে তা শুধু এমন অভিব্যক্তিই বুঝতে পারে যার থেকে আমাদের উপর সরাসরি বা অবিলম্বে কোনও প্রভাব পড়তে পারে। কিন্তু তার চেয়ে গভীর অভিব্যক্তি আমাদের মস্তিষ্ক চিনতে পারে না।

মার্কিন সেনাবাহিনীর রিসার্চ সাইকোলজিস্ট হিসেবে কাজ করার সময় প্রথম সোশ্যাল, ইমোশনাল ও মরাল জাজমেন্টের উপর ঘুমের প্রভাব নিয়ে এই গবেষণা চালান কিলোগর। ৫৪ জন অংশগ্রহণকারীকে বিভিন্ন অভিব্যক্তির ছবি দেখানো হয়। যেখানে একই ব্যক্তি বিভিন্ন ছবিতে বিভিন্ন অভিব্যক্তি প্রকাশ করেছেন। এর মধ্যে রয়েছে ভয়, খুশি, দুঃখ, রাগ, অবাক ও বিরক্তি। দেখা গিয়েছে যাঁরা ঘুমের অভাবে ভোগেন, তাঁরা অন্য অভিব্যক্তির প্রকাশ বুঝতে পারলেও খুশি ও দুঃখের মতো গভীর অভিব্যক্তি বুঝতে পারেন না। এরপর তাঁদের ভাল করে ঘুমোতে দেওয়া হয়। দেখা গিয়েছে ঘুমের ফলে তাদের গভীর অভিব্যক্তি বোঝার ক্ষমতা আগের থেকে উন্নত হয়েছে।নিউরোবায়োলজি অব স্লিপ অ্যান্ড সার্কাডিয়ান রিদমস জার্নালে এই গবেষণার ফল প্রকাশিত হয়েছে।